বাংলাদেশ

দেবিদ্বার ও ব্রাহ্মণপাড়ার সংযোগ সড়ক গুলো মৃত্যুর ফাঁদ

কুমিল্লার দেবিদ্বার ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সংযোগ সড়কগুলো দীর্ঘদিনেও সংস্কার হয়নি। দুই উপজেলায় কালিকাপুর-সাইচাপাড়া, সুলতানপুর-বিপাড়া, ফতেহাবাদ- দুলালপুর, এগার গ্রাম-বালিনা, মুগসাইর-শিদলাই, মুগসাইর-প্রজাপতি, সৈয়দপুর-প্রজাপতি গ্রামের সংযোগ সড়ক রয়েছে। এর মধ্যে কিছু সড়ক কাঁচা রয়েছে। তবে পাকা সড়কগুলোর অবস্থাও নাজুক।

বেড়াখলা-দুলালপুর সড়ক যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সেখানে ইট ফেলে রাস্তা মেরামত করা হলেও রাস্তা থেকে অধিকাংশ ইট উঠে এখন গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফতেহাবাদ-দুলালপুর সড়কটি চলাচলের অন্যতম পথ। একটি ইটের কণাও পড়েনি গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটিতে।
একই অবস্থা এগার গ্রাম-বালিনা ও মুগসাইর-বেড়াখলা সড়কগুলোতে। রাস্তাগুলোতে কাদা থাকে বছর জুড়ে। এই সংযোগ সড়কগুলোতে প্রতিদিন ৪০টির বেশি গ্রামের মানুষ যাতায়াত করে। বেহাল সড়কগুলো নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রী ও চালকরা। তারা বলছেন মা-বাবা নেই এই সড়কগুলোর!

ভিক্টোরিয়া কলেজ শিক্ষার্থী কামরুল হাসান বলেন, ‘নিত্য-প্রয়োজনে এই দুই উপজেলার মানুষকে প্রতিদিন রাস্তাগুলো দিয়ে চলাচল করতে হয়।

রাস্তায় চলাচলে আমাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে

মুক্তিযোদ্ধা শহিদ চৌধুরী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় এগার গ্রাম থেকে ব্রাহ্মণপাড়া রাস্তাটি ছিল চলাচলের জন্য আমাদের প্রধান পথ। এই সড়ক দিয়ে আমরা মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণের জন্য ভারত গিয়েছিলাম। এত বছর পরও রাস্তাটি সংস্কার হলো না।

ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিপন ভুঁইয়া বলেন, ফতেহাবাদ-দুলালপুর রাস্তাটি আমার ইউনিয়নে পুরোটা পড়েনি। এটা অন্য ইউনিয়নে। আমার ইউনিয়নে যেটুকু কাঁচা আছে, চলতি বছরেই ইটের সলিং বসানো হবে।

দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বলেন, রাস্তাটি নিয়ে মানুষ অনেক দুর্ভোগে আছে। ফতেহাবাদ-দুলালপুর রাস্তাটি সংস্কারের জন্য তিনটি দরখাস্ত দেওয়া হয়েছে।

Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close