বাংলাদেশ

৫০ লাখ পরিবারকে ঈদ উপহার দিলেন শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার ৫০ লাখ পরিবারকে ১ হাজার ২৫০ কোটি দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এই কার্যক্রম উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

করোনা ভাইরাসের কারণে স্থবির জনজীবন। ঘরবন্দী দেশ বাসী। এতে করে বিপাকে পড়েছেন নিম্ন-আয়ের মানুষ। দিন আনে দিন খায় এসব মানুষেরা পেটের ক্ষুধায় মরছে। আর তাই ৫০ লাখ পরিবারকে ১ হাজার ২৫০ কোটি টাকা সহায়তা দিচ্ছে সরকার। যার ফলে প্রত্যেকে পাবেন আড়াই হাজার টাকা করে। এই কার্যক্রম উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের প্রত্যেকটা এলকায়, জায়গায় মানুষের কষ্টটা দূর করাটাই লক্ষ্য। সেটাই চাই। এতো বেশি মানুষ, অনেক দিন দিতে পারবো না। কিন্তু কিঞ্চিৎ পরিমাণ দিলেও যেন দিতে পারি। কেউ যেন বঞ্চিত না হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন রমজান মাসে ভাসমান মানুষ নির্মাণ শ্রমিক, কুলি-মজুর, নাপিত,রেষ্টুরেন্ট কর্মী সহ নিম্নবিত্ত শ্রেনির মানুষ যারা দৈনন্দিন কাজ করে খেত তাদেরকে কীভাবে অর্থ সহায়তা করা যায়। সেজন্য এই অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে ।

শেখ হাসিনা বলেন, ১ হাজার ২৫০ কোটি টাকা থেকে জনপ্রতি ২৫০০ টাকা এককালীন দেওয়ার ব্যবস্থা করছি।

বিকাশ,রকেট সহ কয়েকটি মোবাইল ব্যাংকিয়ের মাধ্যমে এই টাকা দেওয়া হচ্ছে। সরকারের ত্রান পাওয়া ১ কোটি ২৫ লাখের মানুষের মাঝ থেকে ৫০ লাখ হতদরিদ্র মানুষকে এই সহায়তা দেওয়া হবে। জানা গেছে দৈনিক ১০ লাখ মানুষকে টাকা দিবে সরকার।

করোনা কালে মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনদের কথা তুলে এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সকল মসজিদে ঈদ উপলক্ষে আমি কিছু আর্থিক সহায়তা দেব। সেই তালিকাটা আমরা দিচ্ছি। শেখ হাসিনা বলেন, আমি মনে করি, আমাদের একটা দায়িত্ব আছে। পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগেই এই সহায়তা প্রদান করা হবে জানান তিনি।

একই সাথে কওমি মাদ্রাসাকে আরো সাহায্য করার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, আমাদের অনেক মাদ্রাসা আছে, সেখানে এতিমখানা আছে, তারা অনেক কষ্টের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিল। তাদের কথা চিন্তা করে ৬ হাজার ৬৮৫ টি এতিমখানা আছে। সেখানে আমরা আর্থিক সহায়তা করেছি। ১০ কোটি টাকা প্রথম ধাপে এই খাতে দেওয়া হয়েছে বলে জানান শেখ হাসিনা। দ্বিতীয় ধাপে আরো ৭ হাজার মাদ্রাসাকে সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা করা হবে বলে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ঈদের আগে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। সেই পদক্ষেপও আমি নিয়েছি।

সরকার প্রধান এসময় আরো বলেন, মসজিদ কমিটি এবং বিত্তবানরা এখন রমজানে ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের সহায়তা করছে। তারপরও এই কঠিন সময়ে তাদের সহায়তা করা সরকারের দায়িত্ব।

এসময় শেখ হাসিনা প্রবাসীদের কথা তুলে ধরে বলেন, আমাদের প্রবাসীরা, তারা রেমিট্যান্স পাঠায়। তারা যেন ঘরবাড়ি বিক্রি, ঋণ নিয়ে বিদেশে না যেতে হয়। তারজন্য প্রবাসী কল্যাণ নামে একটি বিশেষ ব্যাংক খোলা হয়েছে। সেই ব্যাংকে অতিরিক্ত ৫০০ কোটি টাকা দেওয়া হবে। এর আগে সেখানে ৪০০ কোটি দেওয়া হয়েছে বলে জানান শেখ হাসিনা।

চলমান বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে প্রবাসী যারা দেশে এসেছেন তারা যেন কম সুদে ঋণ নিয়ে পারে সঙ্গে সেজন্য কর্মসংস্থান ব্যাংকে ২ হাজার কোটি ও প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকে ৫০০ কোটি টাকা দিচ্ছে সরকার।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close