আন্তর্জাতিক

সেনাবাহিনী দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার হুমকি দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

পুলিশের হাতে নির্মমভাবে জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ উত্তাল পুরো যুক্তরাষ্ট্র। আন্দোলনের জোয়ার শুরু হয়েছে কানাডা, যুক্তরাজ্য, জার্মানি সহ বিভিন্ন দেশে। টানা ছয়দিন ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলছে প্রতিবাদ মিছিল। ওয়াশিংটন, নিউইয়র্ক, ফ্লোরিডা, ক্যালেফর্নিয়া সহ বড় বড় শহর গুলো অবিরত চলছে বিক্ষোভ সমাবেশ। একই সাথে অনেক স্থানে চলছে সহিংসতা জ্বালাও পোড়াও সহ ভাঙচুর। এই অবস্থায় জারি করা হয়েছে কারফিউ, মাঠে নামানো হয়েছে ন্যাশনাল গার্ড বাহিনীকে। তবে থামানে যাচ্ছে না বিক্ষুদ্ধ মার্কিনীদের।

আর তাই এমন পরিস্থিতিতে শহর গুলোতে সেনাবাহিনী নামাচ্ছেন তিনি। সিএনএনের রিপোর্টে বলা হয় নিজেকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী প্রধান হিসাবে ঘোষণা করে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সোমবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে যদি ব্যাপক সহিংসতা শোধ না করা হয় তবে তারা সামরিক বাহিনী ব্যবহার করার ঘোষণা দেন।

এসময় বলেন, কোনো শহর বা রাজ্য যদি তাদের বাসিন্দাদের জীবন ও সম্পত্তি রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে অস্বীকার করে তবে আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনা মোতায়েন করব এবং দ্রুত তাদের সমস্যার সমাধান করব।

তিনি সহিংস প্রতিবাদকে সন্ত্রাসের ঘরোয়া কর্মকাণ্ড বলে অভিহিত করেছেন। এরআগে ট্রাম্প বিক্ষোভকারী দের দুষ্টু কুকুর দিয়ে শাস্তি দেওয়ার হুশিয়ারী দেন। হোয়াইট হাউসের সামনে আন্দোলকারী সহিংসতা শুরু করলে ট্রাম্পের সিকিউরিটিরা থাকে ব্যাষ্কারে লুকিয়ে রাখেন।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close