বাংলাদেশ

সিলেটের গোলাপগঞ্জে ১৪ জন কোভিড ১৯ -এ আক্রান্ত, লকডাউন ঘোষণা

আজ সকাল থেকে গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকাকে লকডাউন করা হচ্ছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল। শনিবার সিলেটের গোলাপগঞ্জে নতুন করে ১৪ জন নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। যাদের মাঝে ১৩ জনই পৌর এলাকার টিকরবাড়ির। অন্যজন উপজেলার সুন্দিসাইল গ্রামের।

বৈশ্বিক মহামারীতে আক্রান্ত হয়েছে ২১০ টি দেশ ও অঞ্চল। মৃত্যুর মিছিল শুধুই বেড়েই চলেছে প্রতিদিন। হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এর ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। সারা বিশ্বের দেশেও বাড়ছে মৃত্যু ও সংক্রমণ। পালে হাওয়া দিয়ে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে দেশের সব অঞ্চলেই। বাদ যায়নি প্রবাসী অধ্যুষিত সিলেটের গোলাপগঞ্জও। প্রথমদিকে কোনো আক্রান্ত শনাক্ত না হলেও গত কয়েক সপ্তাহ আগে ধরা পড়েন প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত একজন। এরপর মাঝে অনেক দিন বিরতি দিয়ে গেল সপ্তাহে আর একাধিক জন আক্রান্ত হন। এবার সব হিসেবে নিকেশ পাল্টে দিয়ে এক লাফে বেড়ে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা।

সূত্রে জানা যায়, পৌর এলাকার টিকরবাড়ির এক ব্যক্তি দিন দুয়েক আগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। তার সংস্পর্শে আসা ৪২ জন সহ ৫৬ জন ব্যক্তিকে নমুনা পরিক্ষা করা হয়। সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরিক্ষা করা হলে ১৪ জনের মাঝে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। যাদের মধ্যে ১৩ জনই টিকরবাড়ি এলাকার। অন্য ১ জন উপজেলার সুন্দিশাইল গ্রামের।

এই পরিস্থিতিতে রবিবার থেকে গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার রাতে পৌর সভার কর্মকতারা এক জরুরী বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেন। লকডাউন ঘোষণা করায় নিত্য প্রয়োজনীয় দোকান ও ওষুধের দোকান ব্যতিত সব ধরণের দোকানপাট বন্ধ থাকিবে।

এই বিষয়ে পৌর সভার মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল বলেন, শুধুমাত্র নিত্য প্রয়োজনীয় দোকান, ওষুধের দোকান ছাড়া সব ধরনের দোকান ও প্রতিষ্ঠান সহ পরিবহন বন্ধ থাকিবে। নতুন করে যাতে সংক্রমণ হার না বাড়ে সেজন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে গোলাপগঞ্জে আরো ৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যাদের মধ্যে ছিল এক শিশু। উপজেলাটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২১ জন।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close