বাংলাদেশ

সবার কাজ কাম আছে আপনাদের কাজের উপর ঠাডা পড়ছে নাকি: এনজিও কর্মী

আব্দুল কাইয়ুম,নিজস্ব প্রতিবেদক:সরকারের পক্ষ থেকে করোনার এই দূর্যোগের মুহুর্তে কিস্তি আদায়ে কোন চাপ না দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।কিন্তু দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গ্রামে গিয়ে ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহিতাদের নানান ভাবে চাপ দিচ্ছে এনজিও কর্মকর্তারা,কুমিল্লা জেলাতে ক্ষুদ্র এবং বৃহত্তম মিলিয়ে প্রায় ১৬৮ টি এনজিও প্রতিষ্ঠান আছে, আজ বৃহস্পতিবার রোজ সকালে (০৯/০৭/২০২০) কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলার ৭ নং ওয়ার্ডের ১৪ নং লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের নলুয়া চাঁদপুর উত্তর পাড়ার দোকানি বাড়িতে পেইজ ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠান থেকে কিস্তি আদায়ের জন্য তাদের মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা আসেন, এক পর্যায়ে গ্রহীতারা কিস্তি প্রদানে অক্ষমতা প্রকাশ করলে তাদের সাথে খারাপ আচরণ করেন ঐ এনজিও কর্মী,।

কিস্তি আদায়ের জন্য চাপ প্রয়োগ করলে গ্রহীতা এনজিও কর্মীকে বলেন, “এখন মানুষের কাজ কাম নেই, কিভাবে টাকা দিবো? আজ কয় মাস ই সমস্যার মাঝে যাচ্ছে এখন কি করবো? কাজ কাম করতে পারলে যেভাবে হোক তা পরিশোধ করে দিবো “
ঐ এনজিও কর্মী তাদের এমন আকুতি মিনতি গ্রাহ্য না করে উল্টো কঠোর ভাষায় তাদের শাসিয়ে গেছেন।
ঐ ঋণ গ্রহীতার ভাষ্যমতে এনজিও কর্মী তাকে বলেছেন, ” টাকা না দিতে পারলে তহন টাকা উঠাইলেন ক্যান? সবাই কাজ করতাছে আপনাদের কাজের উপরে কি ঠাডা পড়ছে নাকি “। সরকারের বেধে দেওয়া নির্দেশ মানছেনা অনেক এনজিও প্রতিষ্ঠান, অত্র এলাকার মানুষের ভাষ্যমতে তারা গ্রামে প্রবেশ করে গ্রামের সহজ সরল কর্মহীন মানুষদের সাথে কিস্তি আদায়ের জন্য নিয়মিত বিদ্রুপ আচরণ দেখিয়ে যাচ্ছে। তারা আরো বলেন সরকারের বেঁধে দেওয়া নির্দেশ কেও মানছে না, আমরা ঋণ গ্রহীতারা কোথায় যাবো

Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close