বাংলাদেশ

সচেতনতাই পারে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করতে

নোবেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এই শব্দটি শুনেনি বিশ্বের এমন কোনো মানুষ নেই। ভাইরাসটি সূর্য থেকে ছিটকে পড়া আলোক রশ্মির মতো বলে এর নামকরণ করা হয়েছে করোনা ভাইরাস (COVID-19)। গবেষকদের মতে,বিশ্বে এটি প্রায় সাড়ে ৬ কোটি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিতে পারে।চীন থেকে উত্থান হওয়া ভাইরাসটি ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে আমাদের দেশসহ বিভিন্ন দেশে। এক করোনা মহামারীতে বিশ্বের শক্তিশালী দেশসমূহ নাস্তানাবুদ। আক্রান্ত আর মৃতের সংখ্যার হার যেনো পাল্লা দিয়ে বেরে বিশ্ববাসীকে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। বাংলাদেশও ঝুঁকিমুক্ত নয় এই মহামারী থেকে।দেশের মানুষের উদাসীনতা আর অসাবধানতাবশত চলাচলের কারণে ভাইরাসটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্কের সৃষ্টি করছে।এই আতঙ্ক কোনোভাবে অবহেলা করার মতো নয়।তাই বাড়ছে দেশের গ্রাম ও নগর পর্যায়ের সকল পরিবারগুলোর দুশ্চিন্তা আর ভয়।কিন্তু আমাদের সৌভাগ্যের বিষয় হল যেই মুহুর্তে বিশ্বের শক্তিশালী রাষ্টগুলো (COVIED-19) এর কাছে হার মেনে নিজেদের অক্ষমতার পরিচয় দিচ্ছে সেই সময়ে বাংলাদেশের মানুষের একমাত্র আশার বাতিঘর,দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিটা এই ভাইরাস মোকাবেলায় সাহসী মনোবল সাথে রেখে নিরলস ভাবে প্ররিশ্রম করে যাচ্ছেন,দেশের মানুষকে সতর্ক করার পাশাপাশি পৌছে দিচ্ছেন ত্রান সামগ্রী।
স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন এবং নিরাপদ থাকুন। এক এক জন মানুষের সতর্কতা ও স্বাস্থ্যসম্মত বিধিমোতাবেক আচরণও অনেক বড় ভূমিকা রাখতে সক্ষম। সবাই সচেতন হই,সতর্ক হই এবং সাবধান হই।কঠিন কিন্তু দায়িত্বপূর্ণ কাজ।সত্যিকার অর্থে এখন এটাই হচ্ছে জীবন রক্ষাকারী দায়িত্ব আমাদের।আসুন আমরা নিজেরা বাঁচি ও আমাদের পরিবারকে বাঁচতে সাহায্য করি।

লেখকঃইসরাত জাহান
সরকারি হাজ্বী মোহাম্মদ মহসিন কলেজ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close