আন্তর্জাতিক

সংকটে ঐক্যের আহবান ডব্লিউএইচও মহাপরিচালকের

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এর মহাপরিচালক ট্রেডোস আধানম গেবেয়াসিস সতর্ক প্রকাশ করে বলেছেন, করোনা ভাইরাসে শেষ হতে অনেক বাকি আছে। এছাড়া আফ্রিকা, লাতিন আমেরিকা, পূর্ব ইউরোপ ও এশিয়ার কয়েকটি দেশে সংক্রমণ বাড়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ডব্লিউএইচও মহাপরিচালক।

সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমি কোভিড নাইন্টিন মহামারী মোকাবেলার জন্য বিশ্বকে সংহতি ও জাতীয় ঐক্যে একত্রিত হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি। এবং সকলের জন্যই, একটি স্বাস্থ্যকর, নিরাপদ, সুন্দরতম বিশ্ব গড়ে তুলতে।

এসময় ট্রেডোস আধানম আরো বলেন, করোনা ভাইরাসে কারণে এখনও সাধারণ স্বাস্থ্য সেবা ব্যাহত করছে, বিশেষ করে দরিদ্র দেশ গুলোতে শিশুদের জন্য জীবনরক্ষার টিকাদানকে ব্যাহত করছে।

ইউরোপের দেশগুলোতে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ অনেকটা হ্রাস পাচ্ছে। এরফলে ভাইরাসটির কাছে বিপর্যস্ত ইতালি, স্পেনসহ বিভিন্ন দেয় লকডাউন শিথিল করতে যাচ্ছে। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায়সহ নিয়ম মেনে চলার আহবান জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক।

তিনি বলেন, যেহেতু ইউরোপে লকডাউনগুলি নতুন কোভিড নাইন্টিনে আক্রান্তের সংখ্যা হ্রাসের সাথে সহজ হয়েছে, আমরা এই দেশগুলিকে ক্রমহ্রাসমান প্রবণতা অব্যাহত রাখতে নিশ্চিত করার জন্য সমস্ত ক্ষেত্রে সন্ধান, পৃথকীকরণ, পরীক্ষা ও চিকিৎসা এবং প্রতিটি যোগাযোগের সন্ধান করার আহ্বান জানাচ্ছি।

ট্রেডোস আধানম সতর্ক করে বলেন করোনা ভাইরাসে আমাদের সাথে অনেক দিন থাকবে। তিনি বলেন, আমাদের সামনে একটি দীর্ঘ রাস্তা রয়েছে এবং আরও অনেক কাজ করার দরকার আছে। সংক্রমণের দ্বিতীয় ধাপ সঠিক পদক্ষেপের মাধ্যমে প্রতিরোধ করা যেতে পারে।

তিনি এসময় আশংকা প্রকাশ করেন লকডাউনের কারণে আপাতত সীমান্ত বন্ধ থাকায় বিশ্বের ২১ টি দেশে বিভিন্ন রোগের প্রতিষেধের ঘাটতি হচ্ছে বলে। জিএভিআই কে উদ্ধৃত করে ট্রেড্রোস আধানম বলেন, করোনা ভাইরাস মহামারীজনিত কারণে সীমান্ত বিধিনিষেধ ও ভ্রমণে বিঘ্ন সৃষ্টি হওয়ার ফলে ২১ টি দেশে অন্যান্য রোগের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনের ঘাটতির খবর পাওয়া গেছে।

এছাড়া নিয়মিত ম্যালেরিয়া সেবার উপর কোভিড নাইন্টিন এর সম্ভাব্য প্রভাবের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সাব-আফ্রিকা উপ-আফ্রিকার ম্যালেরিয়া সংখ্যার দ্বিগুণ হতে পারে। এটি হওয়ার দরকার নেই, আমরা দেশগুলিকে সমর্থন করার জন্য কাজ করছি।


সাব-সাহারান আফ্রিকা অঞ্চলে ম্যালেরিয়া আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে গেব্রিয়াসিস বলেন, ‘সেটা ঘটতে দেওয়া যায় না, আমরা সহায়তা দেওয়ার জন্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করছি।

এদিকে করোনা ভাইরাস চোখ রাঙানি দিতে পারে আফ্রিকার দেশগুলোতে। আর সেটা যদি তাহলে ডব্লিউএইচও সতর্ক করে বলেছে, করোনা ভাইরাসে আগামী ৬ মাসে ১ কোটি মানুষ আক্রান্ত হতে পারেন দারিদ্র্য প্রবণ আফ্রিকা মহাদেশে।

সারা বিশ্বে এখন পর্যন্ত মহামারি করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ২ লাখ ১০ হাজার এর মতো মানুষ। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩০ লাখ।



Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close