রাজনীতি

লোকে যা বলুক, ছাত্রলীগ আদর্শের জায়গা থেকে কাজ করে যাবে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শই হোক দৈনিকের পথচলা।
যেখানে আপন রক্ত বেইমানি করে সেখানে ছাত্রলীগ প্লাজমা ডোনেট করে। যেখানে শিক্ষিত ছেলেটি বাবার লাশ ফেলে যায়, সেখানে ছাত্রলীগের বখাটে ছেলেটি তা কাঁধে তুলে নেয়, যেখানে ক্ষুধার্ত জননী সন্তান নিয়ে ঘরের কোনায় মুখ লুকায় সেখানে ছাত্রলীগ রাতের আঁধারে খাবার পৌঁছে দেয়। যেখানে সাইক্লোনের ভয়ে সবার ঘর ছেড়ে পালায়, সেখানে বাঁধের মুখে মাটি হয়ে ছাত্রলীগ দাড়ায়। যেখানে প্রশ্ন আসে দেশের তরে দিতে হবে প্রাণ,
সেখানে প্রশ্ন ছাড়াই ছাত্রলীগ দিয়ে যাবে প্রাণ।

বিশ্বের এই ক্লান্তিলগ্নে যখন সমস্ত বিশ্ব স্তব্ধ হয়ে গেছে, তখন ওরা ভুল ত্রুটি নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। ওই কালপ্রিট সমালোচনাকারীরা মনে হয় ওদের জন্মই হয়েছে ছাত্রলীগ নিয়ে সমালোচনা করার জন্য। ভাতের সাথে যেমন নুন ছাড়া খাওয়া যায় না, তেমনি ওদের সমালোচনা না করে যেন ঘুম হয় না। তবুও আমরা মুখ বুজে চুপ করে থেকে চোখ বুঝে দেশের স্বার্থে জনগণের স্বার্থে দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে কাজ করে যায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। কারণ এই সংগঠন আবেগের, অনুভূতির, সংগঠন। যখনই আবেগ-অনুভূতির সংগঠনকে নিয়ে কলমের লাল কালি দিয়ে সমালোচনা করে তখন সত্যিই কষ্ট হয় সত্যিই লাগে, যেন কলিজার উপরে ছুরি দিয়ে কাটে।

লিখেছেন-
দীপ্ত আচার্য্য।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close