আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রে বেসরকারি খাতে ২০ মানুষ মিলিয়ন চাকরি হারিয়েছে

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এর মহাপরিচালক ট্রেডোস আধানম গেব্রেয়াসিস,বুধবার সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন,করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আনা অনেক দেশকে বিধিনিষেধ অবশ্যই অত্যন্ত সতর্কতার সাথে এগিয়ে যেতে হবে বা নতুন ক্ষেত্রে দ্রুত বৃদ্ধির ঝুঁকি নিতে হবে।

জেনেভায় ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে তিনি বলেছেন, দেশগুলি যদি খুব সতর্কতার সাথে এবং পর্যায়ক্রমে পদ্ধতির মাধ্যমে এই সংক্রমণটি পরিচালনা না করে তবে লকডাউনে ফিরে যাওয়ার ঝুঁকি খুব প্রকৃতই থেকে যায়। তিনি আরও বলেছেন, যে এটা সম্ভব হয়নি।

করোনা ভাইরাসের চিকিৎসা দেওয়া স্বাস্থ্য কর্মীরা ফ্রন্টলাইনের কর্মী। তবে তারাও রেহাই পাচ্ছেন না প্রাণঘাতি ভাইরাস থেকে। ৯০ হাজার স্বাস্থ্য কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক নার্সেসিন (আইসিএন)। তবে এই সংখ্যা দিগুণ হতে পারে জানায় তারা। কারণ এখানে ৩০ টি দেশের পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে।

এদিকে বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি খাতে এপ্রিলে ২০.২ মিলিয়ন মানুষ চাকরি হারিয়েছে। এমন তথ্য দিয়েছে এডিপি। এডিপি গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহ-প্রধান আহু ইল্ডিরমাজ বলেছেন, এই স্কেলের কাজের ক্ষতি অভূতপূর্ব।একমাত্র এপ্রিল মাসে চাকরির ক্ষয়ক্ষতির সংখ্যা ছিল মহা মন্দার সময়ে হারিয়ে যাওয়া মোট চাকরির দ্বিগুণের বেশি। গবেষণায় উঠে আসে সবচেয়ে বেশি চাকরি হারিয়েছেন সেবা খাতের মানুষ ১৬ মিলিয়ন। বাণিজ্য, পরিবহন ও ইউটিলিটি খাতে ৩.৪ মিলিয়ন চাকরি হারিয়েছে এছাড়া নিমার্ণ ও উৎপাদন কাজে নিয়োজিত মানুষরাও উল্লেখযোগ্য হার চাকরি খুইয়েছেন।

মহামারী শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ মিলিয়নের বেশি মানুষ ভাতার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেছেন।

ইউরোপীয় কমিশন বলেছে যে ২০২০ সালে ইউরোজোন অর্থনীতিটি ৭.৭ শতাংশ সংকুচিত হবে। কারণ করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের বিপর্যয়মূলক পরিণতিটি এই মহাদেশটি জুড়ে মহামারী আকার ধারণ করছে।

দুই আগে মঙ্গলবার ডোনাল্ড ট্রাম্প মাস্ক কারখানায় গিয়ে বলেছিলেন, হোয়াইট হাউসে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় গঠিত বিশেষ টাস্ক ফোর্স ভেঙ্গে দেওয়া হবে। তবে আজ টুইটারে এক টুইট করে জানালেন টাস্ক ফোর্স থাকছে।

টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের নেতৃত্বে হোয়াইট হাউস করোনা ভাইরাস টাস্কফোর্স এমন বিশাল অত্যন্ত জটিল সংস্থানকে একত্রিত করার একটি দুর্দান্ত কাজ করেছে যা ভবিষ্যতে অন্যদের অনুসরণ করার জন্য একটি উচ্চ মানের নজির স্থাপন করেছে।

এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ২ হাজার ৫২৮। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ হাজারের বেশি। এই নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১২ লাখের ৬৩ হাজার। আর মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৭৪ হাজার ৭৯৯ জনে।

নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য নতুন করে মারা গেছেন ২৬০ জনে। এই নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজার ছাড়িয়েছে। নতুন আক্রান্ত কিছুটা কমেছে ২ হাজার ৭শ’র মতো। মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩ লাখ ৩০ হাজারের বেশি।

রাজ্য হিসেবে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে এদিন নিউজার্সিতে। গত ২৪ ঘন্টায় ৩৪১ জনের প্রাণ গেছে রাজ্যটিতে। মোট সংখ্যা ৮ হাজার ২৯২ জনে দাঁড়ালো।

ইউরোপে করোনা ভাইরাসে প্রথম দেশ হিসেবে ব্রিটেনে মৃত্যুর সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। মোট সংখ্যা ৩০ হাজার ৭৬ জনে। নতুন করে মারা গেছেন ৬৪৯ জন। আর নতুন আক্রান্ত ৬ হাজারের বেশি। এই নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়ালো ২ লাখের বেশি।

যুক্তরাজ্যের কয়েক মিলিয়ন লোককে শীঘ্রই করোনা ভাইরাসের বিস্তার থেকে সীমাবদ্ধ করতে একটি মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে তাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করতে বলা হতে পারে।

জার্মানিতে লকডাউন তুলে নেওয়া হচ্ছে। চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল বলেছেন, আমরা এমন এক পর্যায়ে এসেছি যেখানে ভাইরাসের বিস্তার কমিয়ে আনার আমাদের লক্ষ্য অর্জন করেছি। আমরা আমাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থা রক্ষা করতে সক্ষম হয়েছি সুতরাং আরও সহজতর পদক্ষেপের বিষয়ে আলোচনা ও একমত হওয়া সম্ভব হয়েছে।

চীন ভাইরাসের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয় অবধি করোনাভাইরাস উৎস তদন্ত করতে অনুমতি দেবে না। জাতিসংঘে চীনের রাষ্ট্রদূত চেন জু এমন কথা বলেছেন। এসময় সাম্প্রতিক সময়ে ট্রাম্প ও পম্পেও সহ যুক্তরাষ্ট্র অভিযোগ করে আসছে চীনের উহানে ল্যাবে করোনা ভাইরাস সৃষ্টি হয়েছে। এমন অভিযোগ কে হাস্যকর অযৌক্তিক বলেন তিনি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close