আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রে জুন থেকে দৈনিক মারা যাবে ৩ হাজার মানুষ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জুনে প্রতিদিন ৩ হাজার মানুষ মৃত্যু বরণ করতে পারেন। সেই সাথে চলমান বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসে দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা ১ লাখ ছাড়িয়ে যাবে। এমন আশংকা প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দ্য হিল ট্রাম্প প্রশাসনের নথিপত্র পর্যালোচনা করে এমন খবর দিয়েছে।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হয় ১৫ শ থেকে ২ হাজার এর মতো। তবে ট্রাম্প প্রশাসন বলছে, যে যুক্তরাষ্ট্র ১ জুনের মধ্যে করোনাভাইরাস থেকে প্রতিদিন ৩ হাজার জন মৃত্যুর মুখোমুখি হতে পারে। আর প্রতিদিন আক্রান্ত হতে পারেন ২ লাখ মানুষ।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ১ হাজার ৩২৪ জন। নতুন করে আক্রান্ত ২৪ হাজার। এই নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ ছাড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত প্রাণঘাতি কোভিড নাইন্টিনে মারা গেছেন ৬৯ হাজার ৯২১ জন।

দেশটির মাঝে করোনা ভাইরাসের ভয়াবহ রূপ দেখা নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে কমে এসেছে মৃত্যুর মিছিল। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ২৯৬ জন। এই নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৪ হাজার ৯৪৪ জনে।

এদিকে বেশিরভাগ রাজ্যই করোনা পরিস্থিতি নাজুক হওয়ায় এ বছর স্কুল-কলেজ বন্ধ করে দেয়। এবার সেই ঘোষণা দিলেন নিউজার্সির গর্ভনর৷ রাজ্যের সব স্কুল-কলেজ বাকি শিক্ষাবর্ষের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেন।

এদিকে শুরু থেকেই করোনা ভাইরাসের জন্য চীনকে দোষারোপ করে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রীতিমতো করোনা ভাইরাস তৈরি করেছে উহানের ল্যাব এমন প্রমাণ আছে বলে অভিযোগ তুলেন। তার সাথে সুর মেলান মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যুক্তরাষ্ট্রের এমন অভিযোগের কোনো পায়নি বলে জানিয়েছে।ডব্লিউএইচও এর জরুরি বিভাগের বিশেষজ্ঞ মাইক রায়ান বলেছেন, আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইরাসটির উদ্দিষ্ট উৎস সম্পর্কিত কোনও ডেটা-নির্দিষ্ট প্রমাণ পাইনি। সুতরাং আমাদের দৃষ্টিকোণ থেকে, এটি অনুমানমূলক থেকে যায়।

রায়ান আরো বলেন, যদি সেই ডেটা এবং প্রমাণাদি পাওয়া যায়, তা কখন ভাগ করা যায় তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

রায়ান বলেছেন, বিজ্ঞান রাজনীতি নয় এই বিষয়টি নিয়ে চীনা বিজ্ঞানীদের সাথে মতবিনিময় করা উচিত, অন্যায়ের আগ্রাসনমূলক তদন্ত চালানোর বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা উচিত।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তারা বলেছেন যে কোনও গবেষণাগারে করোনা ভাইরাস উপন্যাসের তৈরির কোনও প্রমাণ তাদের কাছে নেই এবং তারা সন্দেহ করেছেন যে ভাইরাসটি প্রাণীর মাধ্যমে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে।

সোমবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ডব্লিএইচও কর্মকর্তারা বলেছেন, যে করোনা ভাইরাসটির প্রায় ১৫,০০০ সম্পূর্ণরূপে সিকোয়েন্সড নমুনাগুলির ভিত্তিতে প্রমাণগুলি প্রমাণ করেছে যে এটি প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি এবং কোনো গবেষণাগারে তৈরির প্রমাণ নেই।

মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাে ইন্টেলিজেন্স তদন্ত করে জানায়, করোনা ভাইরাস মানুষের সৃষ্টি নয়। এটি প্রাকৃতিক।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী মহামারি নভেল করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২ লাখ ৫২ হাজারের বেশি মানুষ। আর ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ লাখ ৬২ হাজার মানুষ। পাশাপাশি প্রাণঘাতি ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠছেন ১২ লাখ মানুষ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close