আন্তর্জাতিক

বিশ্বজুড়ে মৃত্যু কমেছে

অনলাইন ডেস্ক :

করোনা ভাইরাস নামক অদৃশ্য ভাইরাসের কাছে নাজেহাল বিশ্ববাসী। গত ডিসেম্বরের ৩১ তারিখ সর্বপ্রথম চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে ধরা পড়ে সংক্রমণ ব্যাধি মহামারী করোনা ভাইরাসে। ভাইরাসটির ধরার পড়ার চার মাস পার হয়ে গেছে। অথচ এখনও রোগীটির কোনো ভ্যাকসিন আবিষ্কৃত হয়নি। এরফলে প্রতিদিন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু ও সংক্রমণের মিছিল।

বিশ্ব জুড়ে গত ২৪ ঘন্টায় প্রাণঘাতি কোভিড নাইন্টিনে মারা গেছেন ৫ হাজার ২১৫ জন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার। গত কয়েক সপ্তাহের ন্যায় গত ২৪ ঘন্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে মারা গেছেন ১ হাজার ৬৯১ জন । এই সময় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৯ হাজারের বেশি মানুষ । এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ৬৭ হাজার ৪৪৪ জন। আর আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১১ লাখ ৬০ হাজারে দাড়িয়েছে।

ভাইরাসের প্রকোপে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য দেখছে ভয়াবহ রূপ। রাজ্যটি যেন মৃত্যুপুরিতে পরিণত হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু কমেছে৷ মারা গেছেন ২৯৯ জন, নতুন আক্রান্ত প্রায় ৪ হাজার । নিউইয়র্কে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সংখ্যা ৩ লাখ ১৯ হাজার আর সর্বমোট মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৩৬৮ জন।

এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ডু কুমো বলেছেন, রাজ্যের সমস্ত স্কুল এবং কলেজ বাকি শিক্ষাবর্ষের জন্য বন্ধ থাকবে। শনিবার সংবাদ সম্মেলনে নিউইয়র্কে লকডাউন শিথিল করার জন্য যারা আন্দোলন করছে তাদের উদ্দেশ্যে কুমো বলেন, আপনি যখন অচেতন জলে রয়েছেন তখন এর অর্থ এই নয় যে আপনি অন্ধভাবে এগিয়ে যাবেন। কর্ম নির্ধারণের জন্য তথ্য ব্যবহার করুন
আবেগ নয়, রাজনীতি নয়, মানুষ কী ভাবেন বা অনুভব করেন না, তবুও আমরা তথ্যের নিরিখে যা জানি।

নিউইয়র্ক সিটির মেয়র বিল দে ব্লাসিও
বাসিন্দাদের বাইরে বাইরে জড়ো হওয়ার আবেগ প্রতিরোধ করার অনুরোধ করে বলেন, সুন্দর আবহাওয়া আমাদের জন্য খুব হুমকি।

এদিকে ইলিনয়, ক্যালিফোর্নিয়া এবং মিশিগানে লকডাউন শিথিল করার জন্য বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়েছে। অন্যদিকে শুক্রবার প্রায় এক ডজন রাজ্য সাময়িকভাবে জনজীবনে ফিরে আসে, ছয় সপ্তাহ আগে করোনা ভাইরাস মহামারীর কাণে আমেরিকায় এক স্থবিরতা আসার পর আবারও স্বাভাবিক জীবনে ফিরলো তারা। টেক্সাস অঙ্গরাজ্য কর্তৃপক্ষ তাদের 29 মিলিয়ন বাসিন্দাদের জন্য স্টে-অ্যাট-হোম অর্ডার তুলে ফেলেছে।

নিউইয়র্ক এবং ক্যালিফোর্নিয়ার মতো জায়গাগুলিতে ভাইরাসের বৃদ্ধির হার কমে যাওয়ার পরে ম্যাসাচুসেটস, নেব্রাস্কা এবং উইসকনসিনে সহ অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে নতুন প্রাদুর্ভাব তীব্রতর হচ্ছে।

এদিকে ইউরোপের দেশগুলোতে ধীরে ধীরে করোনা ভাইরাসে কমছে মৃত্যু ও সংক্রমণ। ইতালিতে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ১৯২ জন। যা ৪৯ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন। এই নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে দেশটিতে ২৮ হাজার ৭১০ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৯ হাজার৷ সুস্থ হয়েছেন প্রায় ৮০ হাজার করোনা আক্রান্ত। পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আসায় ইতালিতে আগামীকাল থেকে দুই মাসের মতো সময়ের পর লকডাউন শিথিল হতে যাচ্ছে।

স্পেনে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ২৭৬ জন।এই নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে দেশটিতে ২৫ হাজার। আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৪৫ হাজার। এদিকে স্পেনে বাইরে বের হলে বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহার করতে হবে।

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ শনিবার ঘোষণা দিয়েছেন, তাঁর সরকার আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষকে করোনা ভাইরাস থেকে সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষতির মোকাবেলায় সহায়তা করতে ১৬ বিলিয়ন ইউরো অনুমোদন করবে।

ব্রিটেনে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মারা গেছেন ৬২১ জন। যা গতদিনের তুলনাশ কিছুটা কম। নতুন আক্রান্ত ৪ হাজার ৮শ’র বেশি। এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৮২ হাজার। আর এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২৮ হাজার ১৩১ জন।

করোনা ভাইরাস নিয়ে চীনের ভূমিকা নিয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করতে রাজি নয় ব্রিটিস সরকার। দেশটির এক মন্ত্রী রবার্ট জেনরিক শনিবার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, নভেল করোনা ভাইরাস সঙ্কট সম্পর্কে চীনের পদক্ষেপ গুলোকে নিয়ে ব্রিটেনে পরে দেখবে। এই মুর্হুতে আমাদের ফোকাস হলো প্রকোপটির তাৎক্ষণিক প্রভাব নিয়ে কাজ করা।

মহামারীর আরেক মৃত্যুপুরি ফ্রান্সে ধীরে ধীরে কমছে মৃত্যুর মিছিল। নতুন করে মৃত্যু ১৬৬ জনের। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৪ হাজার ৭৬০ জনের। আর আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬৮ হাজার। এদিকে দেশটিতে বিদেশ থেকে আগত নাগরিকদের ১৪ দিন করে বাধ্যতামূলক কোয়ারান্টাইন করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

মহামারী ঠেকাতে সাফল্য দেখানো জার্মানিতে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন মাত্র ৭৬ জন, নতুন আক্রান্তের সংখ্যাও কম। এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬৪ হাজার। আর মৃত্যুর সংখ্যা ৬ হাজার ৮১২ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটার এর তথ্যমতে সারা বিশ্ব জুড়ে এখন পর্যন্ত মহামারি করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ২ লাখ ৪৪ হাজার ৮৭৮ জন মানুষ। আর আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৪ লাখ ৯৭ হাজার। এদিকে করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছেন ১১ লাখ ২৬ হাজার মানুষ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close