বাংলাদেশ

বরুড়া উপজেলার ৩ নং উত্তর খোশবাসে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে ছেলে খুন, বাবা কুমেক ভর্তি

আব্দুল কাইয়ুম,নিজস্ব প্রতিবেদক: কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলার ৩নং উঃ খোশবাস ইউনিয়নের অলিতলা গ্রামের মেহেদী হাসান রাজু ও তার বাবা আঃ করিমকে তাদের নিজ বাড়ির সামনে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি চুরিকাঘাত করে চলে যায়। এ ঘটনায় মেহেদি হাসান রাজুকে গুরুতর অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয় এবং সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মেহেদী হাসান রাজুকে মৃত ঘোষণা করে এবং মেহেদী হাসান রাজুর পিতা আব্দুল করিমকে হাসপাতালে নিচিকিৎসাধীন অবস্থায় রাখা হয়েছে।

মেহেদী হাসান রাজুর প্রতিবেশীদের থেকে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার সময় বাবা আব্দুল করিম ও ছেলে মেহেদী হাসান রাজু বাড়ির সামনে যান এবং তারা সেখানে গেলে হঠাৎ অতর্কিতভাবে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা বাবা-ছেলে দুজনের উপর ঝাপিয়ে পড়ে দুজনকেই চুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে পালিয়ে যায়। বাড়ির আশেপাশের লোকজন পরে তাদের চিৎকারের শব্দ শুনে এসে দেখে দুজন আহত অবস্থায় পড়ে আছে। পরে মেহেদী হাসান রাজুর পরিবারের লোকজন স্থানীয় প্রতিবেশিদের সহযোগীতায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। মেহেদী হাসান রাজুর লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মর্গে আছে।

এই হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে ৩নং উঃ খোশবাস ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান সরদার বলেন, অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা মেহেদীকে হত্যা করেছে এবং তার বাবাকে কুপিয়ে জখম করেছে। আমি চাই খুনিদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হউক। এ ধরনের ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। আশা করি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে আসামীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে”।

এ বিষয়ে বরুড়ার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সত্যজিত বড়ুয়া বলেন, আমি খবর পেয়ে এএসআই উত্তম ভৌমিককে ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি এবং সে সেখান থেকে আসলে তার কাছ থেকে বিস্তারিত জানা যাবে।

এ বিষয়ে সহকারি উপপরিদর্শক উত্তম ভৌমিক বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছি তবে লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মর্গে আছে, লাশ ময়না তদন্তের পর বাড়িতে পাঠাবে, তার বাবা গুরতর অাহত অবস্থায় কুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close