আন্তর্জাতিক

দেশে দেশে মৃত্যু ও সংক্রমণ কমছে

করোনা ভাইরাস নামের অদৃশ্য এক ভাইরাসকে থামাতে রীতিমতো বিপর্যস্ত,নাজেহাল,অসহায় সারা বিশ্ব। মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২ লাখ ১১ হাজার। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে ৩০ লাখ।

গত ২৩ ঘন্টায় বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ৪ হাজার ৫৩২ জন । নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯ হাজার। মহামারি ভাইরাসটির কেন্দ্রস্থল খ্যাত যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ১ হাজার ৩৮৪। আর আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ হাজার। এই নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১০ লাখ ১০ হাজার । মোট মৃতের সংখ্যা ৫৬ হাজার ৭৫৬ জনে ।

দেশটির মাঝে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু দেখেছে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ৩৪৮ । নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার। নিউইয়র্কে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ২২ হাজার ৬২৩ জন । মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৯৮ হাজার।

নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো সোমবার বলেছেন, যে সম্ভবত তার রাজ্যের অনেক জায়গায় ১৫ মে পর্যন্ত ঘরে থাকার আদেশ বাড়ানো হবে, তবে হাসপাতালের পর্যাপ্ত ক্ষমতা এবং অন্যান্য কিছু ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ শিথিল করা যেতে পারে। এছাড়া নিউইয়র্কে ৭ হাজার ৫০০ মানুষের অ্যান্টিবডি টেষ্ট করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে নিউইয়র্ক ডেমোক্র্যাটরা সোমবার করোনা ভাইরাসের কারণে ২৩ জুনের প্রেসিডেন্ট প্রাইমারি বাতিল করেছেন।

মার্কিন ডোনাল্ড ট্রাম্প সাম্প্রতিক দিনগুলিতে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গুলোতে করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সমস্ত মার্কিন সেনাকে আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য তার সামরিক ও জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টাদেরকে চাপ দিচ্চেন বলেন আমেরিকার দুই প্রাক্তন ও প্রাক্তন সিনিয়র কর্মকর্তা। এদিকে বিরতি দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে ফিরে আবার করোনা ভাইরাসের জন্য চীনের সমালোচনা করেছেন ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন,চীন যদি ভালো প্রদক্ষেপ নিত তাহলে ভাইরাসটি এভাবে ছড়াতে পারতো না।

করোনা ভাইরাসে ব্রিটেনে মৃতের সংখ্যা ২১ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন আরো ৩৬০ জন। যা গত ৩১ মার্চের পর সর্বনিম্ন মৃত্যু। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ৪ হাজার এর মতো। ব্রিটেনে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৫৭ হাজার।

এদিকে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে কর্মস্থল ডাউনিং স্ট্রেটে ফিরেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এসময় প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন তার প্রতিনিধিদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, যুদ্ধের পর দেশ সবচেয়ে বড় একক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছে।

যুক্তরাজ্য এখনও করোনা ঝুকির মধ্যে আছে তাই এখনই লকডাউন শিথিল করার পরিকল্পনা নেই বলে বরিস জনসন বলেন, জনগণকে লকডাউন দিয়ে ধৈর্য না হারাতে। লকডাউন তুলে নিলে দ্বিতীয় ধাপে ভাইরাসের প্রাদূর্ভাব ঘটতে পারে এবং আরও বেশি মৃত্যুর কারণ হতে পারে।

বরিস জনসন আরও বলেন, যে সরকার সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। এটি সর্বোচ্চ ঝুঁকির সময় এবং বিধিনিষেধে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার কোনও দরকার নেই।

করোনা ভাইরাসের মৃত্যুপুরি ইতালিতে ৭ সপ্তাহ লকডাউন থাকার পর ৪ মে থেকে লকডাউন শিথিল করতে যাচ্ছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী গুইসপে কন্তে বলেন, কল-কারখানা,পার্কসহ আরো কিছু সুবিধা ভোগ করা যাবে মে মাস থেকে তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হবে সেপ্টেম্বরে। আর এসব কিছু কঠোর নিরাপত্তার মাধ্যমে করা হবে, ঝুকি এড়াতে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে। এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় ইতালিতে করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ৩৩৩ জন। এই নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা ২৬ হাজার ৯৭৭ জনে দাঁড়ালো। আর আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৯৯ হাজার।

১২ মার্চ থেকে লকডাউনে যাওয়া স্পেনে ৬ সপ্তাহ পর সীমিত আকারে বাড়ির বাইরে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছে শিশুরা। পরিস্থিতি আরো নিয়ন্ত্রণে আসকে পর্যায়ক্রমে শিথিল হবে আরো। এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় দেশটিতে করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ৩৩১ জন। এই নিয়ে মোট মৃত হলো ২৩ হাজার ৫২১ জনের। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ২৯ হাজার।

মহামারি কোভিড নাইন্টিনে বিপর্যস্ত ইউরোপের আরেক দেশ ফ্রান্সে গত কয়েকদিনের তুলনায় আজ বেড়েছে মৃতের সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ৪৩৭ জন। নতুনভাবে সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ৭৪২ জন। আর এই নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১ লাখ ৬৫ হাজার। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২৩ হাজার ২৯২ জন।

ভাইরাস মোকাবেলায় সাফল্য দেখানো জার্মানিতে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছেন ১৫০ জন। সর্বমোট এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা দেশটিতে ৬ হাজার ছাড়িয়েছে । আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৫৮ হাজার। তুরস্কে নতুন মৃত্যু ৯৫ জনের, মোট ২ হাজার ৯০০ জনের। আর আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১২ হাজার।

ইরানে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃত্যু হ্রাস পাচ্ছে। নতুন করে মারা গেছেন ৯৬ জন। মোট এই সংখ্যা ৫ হাজার ৮০৫ জন। আর আক্রান্তের সংখ্যা ৯১ হাজার। রাশিয়ায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, যদিও মৃতের সংখ্যা সীমিত। এখন পর্যন্ত ৭৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে দেশটিতে, আর আক্রান্তের সংখ্যা ৮৭ হাজার।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী বিশ্ব জুড়ে এখন পর্যন্ত প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ২ লাখ ১১ হাজার। আর আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ৭৩ হাজার । এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ২৪ হাজার ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close