বাংলাদেশ

দেশের সর্বকনিষ্ঠ কমিশনার থেকে জনতার নেতা মেয়র কামরান

নাঈম হোসেন : রাত তখন প্রায় সাড়ে ৩ টা হঠাৎ খবর এল আর নেই সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

করোনা বিপর্যস্ত,সিলেট বাসীকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন সিলেট বাসীর প্রিয় এই মেয়র। এ যেন ঘুমন্ত নগরীকে জাগিয়ে গেলেন। হঠাৎ এত তাড়াতাড়ি সিলেটের মাটি ও মানুষের নেতা মারা যাবেন সেটা সিলেট বাসী বিশ্বাসই করতে পারছেন না। পুরো সিলেটে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

১৯৫১ সালের ১ জানুয়ারী সিলেটে জন্ম কামরানে। ছাত্র জীবন থেকেই রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন তিনি। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রথম মেয়র হওয়ার গৌরব অর্জন করেন কামরান। ২০০৩- থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত সিলেট নগর পিতার দায়িত্ব পালন করেন এই আওয়ামী লীগ নেতা। এছাড়া বাংলাদেশের সর্বকনিষ্ঠ পৌরসভার কমিশনারও নির্বাচিত হন তিনি। পৌর চেয়ারম্যানও হন একবার। এছাড়া বদরউদ্দিন আহমদ কামরান টানা তিনবার দেশের ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সিলেট মহানগর শাখার সভাপতি হন। এরআগে ১৯৮৯ সালে সাধারণ সম্পাদক হয়ে সিলেটের রাজনীতিতে অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে পড়েন কামরান। এরপর ১৯৯২ সাল ১৯৯৭ সালে পুনরায় সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান তিনি। বর্তমানে তিনি বিশেষ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন।

কামরানের জীবনের একটা লক্ষ্য ছিল মানুষের সেবা করা ও অসহায়, দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়ানো। তাই তো অসুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত নগরীর অলি-গলিতে ত্রাণ পৌঁছে দিছেন তিনি। বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের প্রেরণা তার মা। তাকে সাহস দিয়েছেন জীবনের প্রতিটি ধাপে। তাই তো সাফল্যের চূড়ায় উঠে ছিলেন কামরান।






Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close