বাংলাদেশস্বাস্থ্য

তারাবির নামাজ ঘরে পড়তে বললেন প্রধানমন্ত্রী

আজ-কাল, অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আসন্ন রমজান মাসে তারাবির নামাজ ঘরতে পড়তে। সাথে রমজানে পণ্য সমাগ্রীর সমস্যা না হয় সেদিকে খেয়াল আছে বলে জানান তিনি। এছাড়াও ব্যব্যস্থা আগে থেকে নেওয়া করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে বলে জানান সরকার প্রধান।

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার বিভাগের ৯ জেলার সাথে ভিডিও কনফারেন্স এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স যোগ দেন শেখ হাসিনা

শেখ হাসিনা বলেন, আপনারা দেখেছেন সৌদি আরবে সেখানে মসজিদে নামাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি তারাবির সেখানে ঘরে বসে পড়তে বলা হয়েছে। ঠিক এই ভাবে মসজিদ,মন্দির, গীর্জা এমনকি ভ্যাটকিন সিটিতেও তারা সবকিছু সুরক্ষিত করেছে।কাজে এই বিষয়ে থেকে আমাদের শিক্ষা নেওয়ার ব্যাপার আছে। যে কারণে আমরা মসজিদে না গিয়ে নিজের ঘরে নামাজ পড়তে বলেছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন,নামাজ পড়া আল্লাহর ইবাদত, আর ইবাদত আপনি যে কোনো জায়গায় করতে পারেন। সামনে রোযা এই রমজান মাসে যাতে আমাদের কোনো পরিবহন বা পণ্য সামগ্রীর অভাব না হয় সে ব্যবস্থা নিয়েছি। সেই সাথে তারাবির নামাজ যেহেতু সৌদি আরবে ও অন্যান্য দেশে হচ্ছে না,আমাদের এখানে ইসলামিক ফাউণ্ডেশন কতগুলি নির্দেশনা দিয়েছে ইত্যিমধ্যে সেগুলো মেনে ঘরে বসে তারাবির নামাজ পড়ার। নিজের মন করে পড়ে,আল্লাহকে ডাকতে হবে, আপনি আপনার মতো যতো ডাকতে পারবেন আল্লাহ সেটা বেশি কবুল করবেন।

এসময় করোনা যাতে দেশে আর সংক্রমণের হার বাড়াতে পারে সেজন্য প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা নিতে আহবান করে শেখ হাসিনা বলেন, আগেই থেকেই আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি বলেই করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। সরকার প্রধান বলেন,তবুও কেউ মারা যাক যেটা আমরা চাই না। সবাই সুস্থ থাকুক সেটাই আমরা চাই।কাজে এই রোগটা যাতে না ছড়ায়, এরজন্য যা করণীয় তা করতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন মানুষ অমানবিক কাজ করছে, মায়ের একটু জ্বর-সর্দি-কাশি দেখে ছেলে,ছেলের বউ,মেয়ে, এমনকি তার স্বামী জঙ্গলে নিয়ে ফেলে আসে এর থেকে অমানবিক কাজ হতে পারে না। তিনি বলেন অমানবিক হওয়ার কোনো যৌক্তিকতা নাই। এছাড়াও বলেন,একজন মানুষ বা ডাক্তার আক্রান্ত হলে তাকে কেন এলাকা থেকে বের করে দিতে হবে। এরকম বাংলাদেশের মানুষের তো এভাবে অমানবিক হওয়ার কথা না। এসব বিষয় সবার নজরে আনতে চাই। হায়াত মওত আল্লাহ হাতে, যে কোনো যে কোনো সময় মরতে পারে।এগুলো আল্লাহ জানেন কেউ জানে না।

শেখ হাসিনা বলেন,করোনা যে এভাবে সারা বিশ্বকে ঘরবন্দী করে রাখবে সেটা কেউ ভেবেছে।সারা বিশ্বে তো অনেক শক্তিশালী দেশ,তাদের শক্তির দাপটে পৃথিবী অস্থির। আবার শক্তিশালী এক দেয় আরেক দেশের মধ্যে যুদ্ধ চলে। সেই অস্ত্র, সম্পদ কোনো কিছুই কাজে লাগে নাই, কোনো কাজে লাগবে না।সেটাই প্রমাণ করে দিল করোনা ভাইরাস।

এসময় চলমান ত্রান নিয়ে অনিয়ম করছে সেটা বরদাস্ত করা হবে না বলে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাঝে মাঝে আমাদের কাছে অনেক খবর আসে যা খুবই দুঃখজনক। আমরা এই দূর্যোগের মাঝে মানুষ ঘরে বসে আছে তাদের আমরা খাবার দিচ্ছি, আর এই সাহায্যের মাঝে কেউ তাবা দিক সেটা আমরা চাই না। কাজে আমরা এরকম ঘটনা ঘটলে ব্যবস্থা নিচ্ছি। তবে সব অভিযোগ সঠিক নয়, কিছু কিছু লোক একজন আরেকজন কে ষড়যন্ত্র কে ফাঁসিয়ে দেয়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close