বাংলাদেশরাজনীতি

মুগদা মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের আন্দোলনের মুখে বেতন পেল হলের কর্মচারীরা |

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মুগদা মেডিকেল কলেজ শাখা এর ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফল হিসেবে অস্থায়ী বয়েজ শিক্ষার্থী হলের কর্মচারীদের পাওনা বেতন পরিশোধ করা হলো। গত ডিসেম্বর মাসে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মুগদা মেডিকেল কলেজ শাখার দাবীর প্রেক্ষিতে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ৩ তলায় এই অস্থায়ী বয়েজ হলটির কার্যক্রম শুরু হয়৷

নতুন হোস্টেল হওয়ায় সম্পদের অপ্রতুলতার কারণে এতোদিন কর্মচারীদের বেতন নিয়মিত ঠিকভাবে দেওয়া সম্ভব হয় নি। দেশে করোনা মহামারী শুরুর আগ পর্যন্ত হলের শিক্ষার্থীরা চাঁদা তুলে আর কলেজ প্রশাসনের সহায়তায় তাদের বেতন দেওয়া হতো, যা ছিলো অপ্রতুল। করোনা মহামারীর শুরুর পর হল বন্ধ হয়ে গেলে কর্মচারীরা তাদের বেতন নিয়ে বিপাকে পড়ে। এমতাবস্থায় গতমাসে কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে চাঁদা তুলে তাদের নগদ পাঁচ হাজার টাকা করে সাহায্য বিকাশের মাধ্যমে পাঠানো হয়৷ কিন্তু আসলে তাদের এই বেতনের ব্যাপারে একটি স্থায়ী সমাধান দরকার ছিলো।

এ বিষয়টি সর্বপ্রথম অনুভব করেন মুগদা মেডিকেল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ শরিফুল আলম মাহিন এবং সাধারণ সম্পাদক শাহ্ আহমেদ নুছায়ের৷ পরবর্তীতে এই ব্যাপারে তাদের প্রত্যক্ষ হস্তক্ষেপে আজ আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে কলেজ প্রশাসন কর্মচারীদের নিয়মিত ন্যায্য বেতনের ব্যাপারটি নিশ্চিত করে৷ যার ফলস্বরূপ কর্মচারীবৃন্দ আজ প্রত্যেকে ২৪ হাজার টাকা করে অফিস থেকে বুঝে পান৷

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close