বাংলাদেশ

ঘুরে দাঁড়ানোর চেস্টায় গ্রাম বাংলার অর্থনীতি!

মোঃ রুহুল আমীন, নিজস্ব প্রতিনিধি ; বাংলাদেশ গ্রাম প্রধান দেশ। ৬৮ হাজার গ্রাম নিয়েই এই দেশ। ২১ শতকের প্রথম ভাগে এসেও বাংলাদেশের জীবন ব্যবস্থা আবর্তিত হয় মূলত কৃষিকে কেন্দ্র করেই। বাংলাদেশের ৮৬% জনগণ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কৃষি কর্মকাণ্ডের উপর নির্ভরশীল। করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর প্রভাব সারাবিশ্বে অর্থনীতি নিম্নমুখি হয়ে পড়েছে,থেমে গিয়েছে জীবন যাত্রার মান।করোনা ভাইরাসের প্রভাব শেষ পর্যন্ত গ্রামীণ অর্থনীতিতেও চাপ সৃষ্টি করেছে, ফলে প্রায় গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবন ধারণের আয় বন্ধ ছিল সাময়িক। কিন্তু বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা ভাইরাস মোকাবিলা করে গ্রাম বাংলার অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সচল রাখতে ইতোমধ্যে গ্রামীণ জনগোষ্ঠী কাজ কর্মে নিয়োজিত হতে শুরু করছে।স্বাস্থ্যবিধি মেনে কৃষি কাজে মাঠে নেমে গেছে কৃষক। জমিতে চাষ দিয়ে ফসল উৎপাদনের প্রস্তুতি চলছে।হাট বাজারে ক্রেতা বিক্রেতার চাহিদা বাড়ছে সেই সাথে কাচা শাকসবজি ফলমূল, মৎস্য প্রভৃতি উৎপাদন এবং বাজারজাতকরণে প্রক্রিয়ায় আস্তে আস্তে করে গ্রামের অর্থনীতি সচল হচ্ছে।বাংলাদেশের অর্থনীতি মূলত কৃষি নির্ভর। বাংলাদেশের গ্রামীণ প্রাকৃতিক সম্পদের মধ্যে ভূমি, পানি সম্পদ, জলবায়ু বনাঞ্চল, খনিজ সম্পদ উল্লেখ্যযোগ্য।

বাংলাদেশের গ্রামীণ অঞ্চলের মানুষ নিজের বহুমুখী চাহিদা পূরণের উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রাকৃতিক সম্পদের রুপান্তরের মাধ্যমে নিজেদের প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি জাতীয় অর্থনীতিতে রাখছে অবদান। যাতায়াত ও যোগাযোগের সুবিধা, স্বাস্থ্য ও কল্যাণের সুবিধা, প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সরবরাহ এবং সেবা প্রদান প্রতিষ্ঠান, বাজার ও শিল্প স্হাপনা,বিদ্যুৎ,গ্যাস ইত্যাদি।গ্রামের ক্ষুদ্র খামারিদের গবাদিপশু পালনে গরু,ছাগল মোটাতাজা করণের পুষ্টি যুক্ত গবাদিপশুর খাবার সংগ্রহের পাশাপাশি চলছে হাঁস-মুরগি পালনে উৎপাদিত হচ্ছে ডিম।গ্রামের জীবন জীবিকা নির্বাহের জন্য এবং অর্থনীতি সচল রাখতে চলছে প্রচেষ্টা, আশা করা যায় বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় গ্রামীণ অর্থনীতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close