বাংলাদেশস্বাস্থ্য

কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সরকার এবং জনগণ!

মোঃ রুহুল আমীন: বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর সারা পৃথিবী আক্রান্ত। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে পৃথিবীর ইতিহাসে সবচেয়ে জনসংখ্যার বড় দেশ চীনের উহান প্রদেশে, কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়।তখন প্রতিদিন কোভিড-১৯ এর আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ে।প্রথম দিকে চীন সরকার কোভিড-১৯ এর আক্রমণ মোকাবিলা করতে পারি নি, যার ফলে আক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ে।বর্তমানে সারা পৃথিবী জুড়ে আক্রমণ করেছে করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯। কোন দেশই রক্ষা পাচ্ছে না এই রোগের হাত থেকে,ফলে বর্তমানে পৃথিবীর অবস্থা অন্যরকম। করোনা ভাইরাস যখন যে দেশে আক্রমণ করে সে দেশের প্রায় হাজারো মানুষের ক্ষতির পাশাপাশি জীবন নিয়ে নেয়। আবার দেখা যায় যে, সরকারের গৃহীত নির্দেশনা সে দেশের জনগণ মেনে চলায় কিছুটা রক্ষা পাওয়া যায় কোভিড-১৯ এর হাত থেকে;এর উজ্জ্বল প্রমাণ হচ্ছে চীন দেশ। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কোন দেশই ঠেকাতে পাচ্ছে না,হাজারো শক্তিশালী দেশও এখন আক্রমণের শিকার। আমাদের সোনার বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ আক্রমণ করেছে। মার্চ মাসের ৮ তারিখে বাংলাদেশে প্রথম করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর রোগ ধরা পড়ে। সেই থেকে আস্তে আস্তে করে বৃদ্ধি শুরু করে বর্তমানে হাজারো করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ এর রোগী সংখ্যা বাড়ছে এবং সেই সাথে মৃত্যুর সংখ্যাও। সরকার দেশকে প্রায় ৬০ দিনেরও বেশি সময় কঠোর নিরাপত্তায় রেখেছিল। সীমিত আকারে বন্ধ রাখা হয়েছিল অফিস, আদালত,যোগাযোগ, ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান, বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।বর্তমানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাড়া প্রায় সবকিছু খোলে দেওয়া হয়েছে। সেই সাথে স্বার্থ্য বিধি মেনে সবাইকে চলতে বলা হয়েছে।

মুখে মাস্ক পড়া,হাতে গ্লাস্ফ পড়া,হাচি বা কাশির সময় হাতে কনুই ব্যবহার করা,চোখে,নাকে,মুখে হাতের স্পর্শ না করা,২০ সেকেন্ড হাত ধোঁয়া, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা প্রভৃতি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে জনগণ কী স্বার্থ্য বিধি পালন এবং সরকারের বিধিনিষেধ মেনে চলেছে? যদিও সরকার জনগণকে বিভিন্নভাবে সাহায্য সহযোগিতা করছে এবং সরকারের পাশাপাশি বৃত্তবানরাও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজে সব কিছুর নির্দেশনা দিচ্ছেন এবং খোঁজ খবর রাখছেন।বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ মোকাবিলা করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে ন তিনি, ৫০ লাখ পরিবারের মধ্যে ২৫০০ টাকা প্রদানসহ দেশকে অর্থনৈতিকভাবে সচল রাখতে সহায়তা বাজেট ঘোষণাসহও সময় উপযোগী ব্যবস্থা নিয়েছেন।এখন আমাদের সবার উচিত দেশ,সমাজ, পরিবার তথা নিজেদের জীবনকে রক্ষা করার পাশাপাশি ধর্মীয় বিধিমালা এবং সরকার কতৃক গৃহীত স্বাস্হ্য নির্দেশনা সহ সকল আইন মেনে চলা।সবাই যদি নিজ নিজ অবস্থান থেকে সচেতন থেকে স্বাস্হ্যর্বিধি মেনে চলি এবং প্রয়োজনে সীমাবদ্ধ থাকি তাহলে কোভিড-১৯ থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা পাওয়া যাবে। তাই আসুন সবাই মিলে সরকারে গৃহীত পদক্ষেপ মেনে চলি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close