আন্তর্জাতিক

অবশেষে জনসম্মুখে কিম জন উন

অনলাইন ডেস্ক ঃ

অবশেষে সব জল্পনা কল্পনার পর তিন সপ্তাহ পর প্রথমবার জনসম্মুখে এলেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন।

সিএনএন এর প্রতিবেদনে বলা হয়, কিম মে দিবস একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন। যেখানে তাকে ধূমপান এবং হাসতে দেখানো হয়েছিল, উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্র পরিচালিত মিডিয়া জানিয়েছে। তার স্বাস্থ্যের বিষয়ে বিশ্বব্যাপী জল্পনা কল্পনা হওয়ার প্রায় তিন সপ্তাহ পরে এই নেতার প্রথম প্রকাশ্য উপস্থিতি হয়।

কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) অনুসারে কিম শ্রম দিবস উদযাপন এবং একটি সার উদ্ভিদ উদ্বোধনের জন্য একটি অনুষ্ঠানে কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছেন।

সরকারী নিয়ন্ত্রিত মিডিয়া উত্তর কোরিয়ান কেন্দ্রীয় টেলিভিশ কিমের কাঙ্ক্ষিত উপস্থিতির একটি ভিডিও সম্প্রচার করেছিল, যেখানে কিমকে তার বোন কিম ইয়ো জং এবং উত্তর কোরিয়ার অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে মঞ্চে বসে ধূমপান করা এবং হাসতে দেখা যায়।

কেসিএনএ অনুষ্ঠানের স্থিরভাবে কিমের একটি স্থির ছবি প্রকাশ করেছে। ছবিতে তাকে লাল ফিতা কাটতে দেখা যাচ্ছে, তাঁর বোন কিম ইয়ো জং তাঁর পিছনে এসময় ছিলেন।

উত্তর কোরিয়ান টিভি কেসিএন এর রিপোর্ট অনুযায়ী কিম জন এসময় বলেন, সানচন ফসফ্যাটিক সার উৎপাদন কেন্দ্র যখন কার্যকর হবে, তখন এটি আমাদের দেশের সার শিল্পে একটি ঐতিহাসিক উন্নয়নের ভূমিকা পালন করবে।এটি একটি গৌরবময় বিপ্লব এবং আমাদের দেশের দুর্দান্ত অর্থনৈতিক সম্ভাবনার এক দুর্দান্ত প্রদর্শন হবে এবং এটি একটি
উৎসাহিত ব্যানার হবে যা আশ্বাস দেয় আমাদের দেশের সাধারণ অর্থনৈতিক ফ্রন্টলাইনে সাফল্য আমাদের।

এদিকে উত্তর কোরিয়ান নেতা কিম জন উন ২০ দিন পর জনসম্মুখে আসার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেন নি। তিনি বলেন, আমি বরং এ নিয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করব না। আমাদের উপযুক্ত সময় আছে এটি সম্পর্কে কিছু বলার।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট এসময় জানান, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের জন্য আশার আলো হয়ে এসেছে রেমডেসিভির।

করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত, নাজেহাল যুক্তরাষ্ট্র।প্রতিদিন বাড়ছে পাল্লা দিয়ে মৃত্যু ও সংক্রমণ। এই অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্র শুনালো আশার আলো। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থতার জন্য জরুরি প্রয়োজনে অনুমোদন পেল রেমডেসিভির। শুক্রবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প হোয়াইট হাউসে সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন। ট্রাম্প বলেন, এটি সত্যিই একটি আশাব্যঞ্জক পরিস্থিতি। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গিলিয়েডের সিইও ড্যানিয়েল ও’ডে।

অবশেষে জনসম্মুখে কিম জন উন

মূলত যুক্তরাষ্ট্রে রেমডেসিভির ওষুধটি পরীক্ষামূলক ভাবে রোগীদের দেওয়া হয়েছিল। যার ফলে অন্যান্য ওষুধ থেকে এটিতে করোনা ভাইরাস নিমুর্লে কার্যকারিতা বেশি হয়েছে। ইতিবাচক ফল আসাই ওষুধটি নিয়ে আশার আলো দেখছে মার্কিনীরা।

গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রে মহামারী করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন ১ হাজার ৮৯৭ জন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ হাজার মানুষ। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ৬৫ হাজার ছাড়িয়েছে। আর আক্রান্তের সংখ্যা ১১ লাখ ৩১ হাজার। বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন এখন পর্যন্ত ২ লাখ ৩৯ হাজার। আর মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ লাখ ছাড়িয়েছে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close