খেলার খবর

অফসাইডের জনপ্রিয় খেলোয়াড় নির্বাচিত হলেন জিকো

রাকিব হাসান,ক্রীড়া প্রতিবেদকঃ করোনা ভাইরাসের কারনে গোটা বিশ্বের ক্রীড়াঙ্গন থমকে গিয়েছে। ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। এখানেও সব ধরনের খেলাধুলা বন্ধ রয়েছে। খেলাধুলা বন্ধের কারনে সকল খেলোয়াড়রা নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে। আবার অনেকে বাড়িতে, মাঠে কিংবা ফাকা জায়গায় নিজেদের ফিটনেস ধরে রাখার কাজ করছে। খেলা না থাকায় অনেকটাই বন্দি জীবন কাটাচ্ছে খেলোয়াড়রা। শুধু খেলোয়াড় না গোটা দেশের মানুষ বর্তমানে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে।
.

ঠিক এমন সময় অলসতা কাটানোর জন্য একটি ব্যতিক্রম প্রতিযোগিতা নিয়ে হাজির হলো ফেসবুক পেজ “অফসাইড ” । প্রতিযোগিতাটির নাম দেওয়া হয়েছে “Fans Favorite 2020″। বাংলাদেশ জাতীয় দলের ১৬ জন খেলোয়াড় নিয়ে শুরু হয় রাউন্ড অফ সিক্সটিন। যেখানে দুইজন খেলোয়াড় একে অপরের মুখোমুখি হয়। নির্দিষ্ট সময়ে সমর্থকদের প্রাপ্ত ভোটে (রিয়েক্ট) বিজয়ী খেলোয়াড় পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে থাকে।
.
গতবারের বিপিএলে নিজের অসাধারণ পারফরমেন্স দেখিয়ে নীলফামারীবাসী সহ ফুটবল প্রিয় মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছিলো গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো। সর্বশেষ ফেডারেশন কাপের কোয়াটার ফাইনালের পেনাল্টি শুটআউটে অসাধারন দক্ষতা দেখিয়ে আবারো দর্শকদের মন জয় করেন তিনি।
.
শুধু তাই নয় বসুন্ধরা কিংসের হয়ে এএফসি কাপের অভিষেক ম্যাচে ৩টি পেলান্টি সেভ করে বাংলাদেশ জাতীয় দলের তরুন গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো ইতিমধ্যে পেনাল্টি স্পেশালিষ্টের তকমা গায়ে লাগিয়েছেন। তার জন্য ফুটবল প্রেমীদের ভালবাসা কতটুকু তা প্রমান করেছে এই প্রতিযোগিতায়। তিনটি রাউন্ডেই প্রাপ্ত ভোটে জয়ী হয়ে সমর্থকদের জনপ্রিয় খেলোয়াড় নির্বাচিত হলেন জিকো।
.
রাউন্ড অফ সিক্সটিনে সমর্থকদের প্রাপ্ত ভোটে বাংলার রামোস নামে খ্যাত তপু বর্মন কে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা পায় জিকো। সেমিফাইনালে জিকোর মুখোমুখি হয় ইয়াসিন খান। সেখানেও জয়ী হোন তিনি। বুধবার (৮ এপ্রিল) ফাইনালে বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া’র মুখোমুখি হয় তরুন গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো। সেখানেও ফুটবল প্রেমীদের ভালাবাসার প্রতিদান পেলেন তিনি।Fans Favourite 2020 By অফসাইড এর ফাইনালে জামাল ভুঁইয়াকে হারিয়ে সমর্থকদের প্রিয় খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন আনিসুর রহমান জিকো।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close